ঢাকা | মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
নতুন প্রকল্পে বদলে যাচ্ছে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ব্রিটিশ রাজপ্রাসাদের প্রাচীরে উঠায় এক যুবক গ্রেফতার: শর্তসাপেক্ষে মুক্তি বাংলাদেশের দুই নেত্রী শেখ হাসিনা ও বেগম খালেদা জিয়ার লড়াইয়ের ইতি কাতার-সৌদি আরবে খালেদা জিয়ার সম্পদের খবর সর্ম্পণ মিথ্যা বানোয়াট: মধ্যে প্রাচ্যে বিএনপি আগামীকাল ফ্রান্স ডেমনস্ট্রেশনে  যোগ দিচ্ছে যুক্তরাজ্য বিএনপির  ২ শতাধিক  নেতাকর্মী দলীয় নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা : যুক্তরাজ্য বিএনপির  বিবৃতি নিউ ইয়র্কে বাস টার্মিনালে বিস্ফোরণ নিরাপত্তার স্বার্থে ৬০ কোটি সিসি ক্যামেরায় নজরদারীতে আসবে চীন রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনঃ আধুনিক নগরী গড়ার প্রতিশ্রুতি মেয়র প্রার্থীদের আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে বৃটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের সামনে যুক্তরাজ্য বিএনপির বিক্ষোভ
বাংলাদেশ

পরকীয়ার জেরে স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীর মৃত্যুদন্ড

বাংলাপেইজ রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে: ০৬-১২-২০১৭ ইং । ১৬:৪৭:৪০

পরকীয়ার জেরে রাজধানীর পল্লবীতে সেনা কর্মকর্তা মহসীনকে হত্যার দায়ে স্ত্রী মোছা: সালেহা খাতুন শিউলীকে মৃত্যুদন্ডের রায় দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

বুধবার ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪ এর বিচারক আবদুর রহমান সরদার আসামীর অনুপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত সালেহা খাতুন চাঁদপুর জেলার উত্তর মতলবের আইঠাদি মাথাভাঙ্গার মৃত সিরাজুল ইসলাম মাস্টারের মেয়ে।

বিচারক রায়ের পর্যবেক্ষণে বলেন, বর্তমান সমাজে পাষন্ড স্বামী কর্তৃক স্ত্রী হত্যার ঘটনা যেমন ঘটেছে, ঠিক তেমনিভাবে পাষন্ড স্ত্রী কর্তৃক স্বামী হত্যার মত ঘটনাও অহরহ ঘটছে। দেশে আইনের শাসন ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় এ ধরনের মামলার আসামীর উপযুক্ত বিচার হওয়া আবশ্যক। ফলে এই মামলার আসামীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান না করলে এ ধরনের নির্মম, নিষ্ঠুর ও নৃশংসভাবে স্বামী পুরো অন্ডকোষসহ পুংলিঙ্গ কর্তনসহ গলার শ্বাসনালী কাটার মত ভয়ংকর হত্যাসহ এ জাতীয় অভিশাপ থেকে সমাজকে মুক্তি দেয়া সম্ভব না। আসামী যে অপরাধ করেছে তা খুবই মর্মান্তিক, বিভীষিকাময়, নারকীয় এবং ভয়ংকর। এই অপরাধ সভ্য সমাজের মানুষের কাছে কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য ও সহনীয় নয়। তার অপরাধ বর্বরতা ও সভ্যতার সকল সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছে। আসামীকে এই মামলার দন্ড প্রদানের ক্ষেত্রে আইনত: বা ন্যায়ত: কোনো সুযোগ বা আদালত থেকে আসামী কোনো প্রকার দয়া পেতে পারে না।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, মহসীন তার স্ত্রী সালেহা খাতুন এবং দুই ছেলে প্রান্ত ও প্রিয়ন্তকে নিয়ে পল্লবীতে স্থায়ীভাবে বাস করতেন। মহসীনের সাথে সংসার করাকালে সালেহা বিভিন্ন লোকজনের সাথে অবৈধ ও পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে তোলে। যার ফলে তাদের মধ্যে ঝগড়াঝাটি ও মারামারি লেগেই থাকতো। ২০১২ সালের ২৬ অক্টোবর সালেহা খাতুন, শরীফ চৌধুরী আপন, সুরুজ মিয়াসহ ৫/৭ জন পরকীয়া প্রেমিকের সহায়তায় মহসীনের লিঙ্গ ও অন্ডকোষ পুরোটাই শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করে। গলার শ্বাসনালী ধারালো অস্ত্র দিয়ে কেটে ফেলে। এরপর তাকে সিএমএইচ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওই ঘটনায় নিহতের ভাই মো. মজনু মিয়া বাদী হয়ে পল্লবী থানায় একটি মামলাটি দায়ের করেন। এরপর মামলাটি তদন্ত করে সংশ্লিষ্ট থানার এসআই বিপ্লব কুমার শীল পরের বছরের ২১ জানুয়ারী সালেহা খাতুনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

#এস আর/বাংলাপেইজ

 

শেয়ার করুন
সাম্প্রতিক খবর
সর্বশেষ খবর বাংলাদেশ
  • নতুন প্রকল্পে বদলে যাচ্ছে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যান
  • ব্রিটিশ রাজপ্রাসাদের প্রাচীরে উঠায় এক যুবক গ্রেফতার: শর্তসাপেক্ষে মুক্তি
  • বাংলাদেশের দুই নেত্রী শেখ হাসিনা ও বেগম খালেদা জিয়ার লড়াইয়ের ইতি
  • রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনঃ আধুনিক নগরী গড়ার প্রতিশ্রুতি মেয়র প্রার্থীদের
  • ১২৮ জন কর্মকর্তার অতিরিক্ত সচিব হিসেবে পদোন্নতি
  • নিম্নচাপ কেটে গেছে, ফিরছে পর্যটকবাহী জাহাজ
  • তাবিথ আউয়ালকে নিয়ে বিএনপির বৈঠকে আলোচনা
  • তিনদিনের সফরে আজ ফ্রান্স যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
  • ‘বিএনপি দিয়েছিল ১৬০০, আমরা দিচ্ছি ১৬ হাজার মেগাওয়াট’
  • এমপি মুক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দুদকের চিঠি
  • মুস্তাসিম হত্যা : তিনজনের ফাঁসির দণ্ড বহাল
  • নতুন করে বেড়েছে রোহিঙ্গা প্রবেশ
  • আজ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল আমিনের ৪৬ তম শাহাদাত বার্ষিকী
  • রাজধানীর উত্তরায় বহুতল মার্কেটে আগুন
  • ইউসিবি ব্যাংকে অগ্নিকাণ্ডে নৈশপ্রহরী নিহত
  • উত্তাল সমুদ্র, ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত
  • আজ-কাল দুদিনই বৃষ্টি থাকবে
  • আজ আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস
  • সরকার দৈন্যদশায় পড়েনি যে আগাম নির্বাচন দিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী
  • বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস নতুন সাত আন্তর্জাতিক রুট চালু করছে
  • এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।