ঢাকা | রবিবার, ২১ জানুয়ারী ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
বাংলাদেশ

‘সংবিধান অনুযায়ী এবছরের শেষেই নির্বাচন হবে’

বাংলাপেইজ রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে: ১২-০১-২০১৮ ইং । ২০:৫০:৫৮

সরকারের চার বছরপূর্তি উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সংবিধান অনুযায়ী চলতি বছরের শেষদিকে একাদশ জাতীয় সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কীভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে তা আমাদের সংবিধানে স্পষ্টভাবে বলা আছে। সংবধিান অনুযায়ী নির্বাচনের আগে নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হবে। সেই সরকার সর্বোতভাবে নির্বাচন কমিশনকে নির্বাচন পরিচালনায় সহায়তা দিয়ে যাবে।আমি আশা করি, নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত সকল দল আগামী সাধারণ নির্বাচনে অংশ নিবেন এবং দেশের গণতান্ত্রিক ধারাকে সমুন্নত রাখতে সহায়তা করবেন।

আজ শুক্রবার(১২ জানুয়ারী) সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের চার বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণদান কালে এসব কথা বলেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, কোন কোন মহল আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির অপচেষ্টা করতে পারে। এ ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। জনগণ অশান্তি চান না। নির্বাচন বয়কট করে আন্দোলনের নামে জনগণের জানমালের ক্ষতি করবেন- এটা আর এদেশের জনগণ মেনে নিবেন না। তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট থেকে ১৯৯৬ সালের ২৩শে জুন পর্যন্ত এবং ২০০১ সালের ১লা অক্টোবর থেকে ২০০৯ সালের ৬ই জানুয়ারি পর্যন্ত মোট ২৮ বছর বাংলাদেশের জনগণ বঞ্চিত থেকেছে। যারা ক্ষমতা দখল করেছে তারা নিজেদের আখের গোছাতেই ব্যস্ত ছিল। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০১৪ সালে আপনাদের ভোটে নির্বাচিত হয়ে আজকের এই দিনে আমি তৃতীয়বারের মত প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছিলাম। আজ বছরপূর্তিতে আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে হাজির হয়েছি। আমার উপর যে বিশ্বাস ও আস্থা রেখেছিলেন, আমি প্রাণপণ চেষ্টা করেছি আপনাদের মর্যাদা রক্ষা করার। কতটুকু সফল বা ব্যর্থ হয়েছি সে বিচার আপনারাই করবেন। তিনি বলেন, ২০০১ সালের নির্বাচনে 

গভীর চক্রান্ত করে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আসতে দেওয়া হল না। এরপর দেশবাসী দেখেছেন রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন, অর্থ লুটপাট, হাওয়া ভবনের দৌরাত্ম্য। জঙ্গিবাদ সৃষ্টি, বাংলা ভাইয়ের উত্থান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দুইজন সংসদ সদস্যসহ হাজার হাজার নেতাকর্মীকে হত্যা, সংখ্যালঘুদের নির্যাতন ও হত্যা, জমি, ঘরবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দখল, চাঁদাবাজী, মানি লন্ডারিং, দুর্নীতি। প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ২০০৪ সালে ২১শে আগস্ট আওয়ামী লীগের র‌্যালিতে ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা করে ২২ নেতাকর্মী হত্যা, ব্রিটিশ হাই কমিশনারের উপর গ্রেনেড হামলা, দেশব্যাপী নারীদের উপর পাশবিক অত্যাচার- সমগ্র দেশ যেন জলন্ত অগ্নিকু-ে পরিণত হয়েছিল।
দেশবাসী প্রতিনিয়ত সে যন্ত্রণায় দাহ হচ্ছিলেন। এমনি পরিস্থিতিতে জারি করা হল জরুরি অবস্থা। ৭ বছর দুঃসহ যাতনা ভোগ করার পর ২০০৮ সালের নির্বাচনে
তিনি বলেন,আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আপনাদের সেবা করার সুযোগ দিলেন। আমরা আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছি জনগণের সার্বিক উন্নয়নের জন্য। শেখ হাসিনা বলেন, ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারি জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে বিএনপি-জামায়াত জোট সারাদেশে নির্মম সন্ত্রাসী কর্মকা- চালিয়েছিল।নির্বাচনের দিন ৫৮২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পুড়িয়ে দেয়। হত্যা করে প্রিসাইডিং অফিসারসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের।ইন্টারনেট সার্ভিস প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত পৌঁছে গেছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, দেশে ১৩ কোটি মোবাইল সীম ব্যবহৃত হচ্ছে। ৮ কোটি মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন। দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবল স্থাপন করে ব্যান্ডওয়াইথ বৃদ্ধি করা হয়েছে। প্রতিটি ইউনিয়নে ডিজিটাল সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে।সেখান থেকে জনগণ ২০০ ধরনের সেবা পাচ্ছেন।
বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশের মর্যাদা পেয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৯ বছর একটানা জনসেবার সুযোগ পেয়েছি বলেই বাংলাদেশ উন্নত হচ্ছে। বিশ্বব্যাপী মন্দা থাকা সত্বেও আমাদের দেশের অর্থনৈতিক উন্নতি অব্যাহত রাখতে সক্ষম হয়েছি। শিক্ষাখাতে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, ৯ বছরে ২৬ হাজার ১৯৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করা হয়েছে।
১ হাজার ৪৫৮টি গ্রামে প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছি আমরা। ৩৬৫টি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে। ৫০ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ল্যাব ও মাল্টিমিডিয়া ক্লাশরুম স্থাপন করেছি। বছরের প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে ৩৫ কোটি ৪২ লাখ ৯০ হাজার ১৬২টি বই বিতরণ করা হয়েছে। স্বাক্ষরতার হার ৭২ দশমিক ৩ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। শেখ হাসিনা বলেন,মহাজোট সরকারের প্রধান আরো বলেন, সরকারি কর্মচারিদের
বেতনভাতা ১২৩ ভাগ পর্যন্ত বৃদ্ধি করেছি। শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধি করা হয়েছে। সারাদেশে ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলে দেশি-বিদেশী বিনিয়োগ আকৃষ্ট ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে। ভবিষ্যতে বাংলাদেশে কেউ বেকার এবং দরিদ্র থাকবে না বলেও সংবাদ সম্মেলনে উল্লখ করেন।

শেয়ার করুন
সর্বশেষ খবর বাংলাদেশ
  • দুনিয়াতে কল্যাণ ও আখেরাতে মুক্তি কামনায় শেষ হলো আখেরি মোনাজাত
  • পদ্মা সেতুর ৫৬ শতাংশ কাজ সম্পন্ন : সেতুমন্ত্রী
  • ডিসেম্বরের আগে সহায়ক সরকার গঠিত হবে : অর্থমন্ত্রী
  • সংসদ অধিবেশনের হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করে অনুপস্থিত: চিফ হুইপের চিঠি
  • বাংলাদেশের ব্যাংক লুটপাটকারীদের তালিকা ওয়েবসাইটে প্রকাশের দাবি সাংসদের
  • রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশের পাশে থাকবে নয়াদিল্লি: সুষমা
  • ছয় মাসের মধ্যে ডাকসু নির্বাচনের ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ
  • ডিএনসিসি উপনির্বাচনে প্রার্থী দিল নাগরিক ঐক্য
  • সরকারের আশ্বাসে অনশন ভাঙলেন শিক্ষকরা
  • আইভী-শামীম সমর্থকদের সংঘর্ষ, নারায়ণগঞ্জ রণক্ষেত্র
  • অক্টোবরে সংসদ নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু: সিইসি
  • ডিএনসিসি উপনির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী তাবিথ
  • সরকারের বড় অর্জন বিচার বিভাগ কুক্ষিগত করা
  • আনিসুল হকের স্বপ্ন পূরণে কাজ করে যাবো : আতিকুল ইসলাম
  • জনসম্পৃক্ততা বাড়াতে খালেদা জিয়াকে বুদ্ধিজীবীদের পরামর্শ
  • আমরণ অনশনে শিক্ষকরা, মৃত্যু হলেও রাস্তা ছাড়বেন না
  • স্বর্ণদ্বীপে সেনাবাহিনীর ‘অপারেশন ব্যাঘ্রথাবা’ মহড়া
  • বিএনপি নেতা ড. রিপনের খোলা চিঠিতে তোলপাড়
  • আ.লীগ নেতা খুনের দায়ে ৯ জনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত
  • মুসল্লিদের স্রোত এখন টঙ্গীর তুরাগ তীরে
  • এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।