ঢাকা | শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
স্পেনে আন্তর্জাতিক পর্যটন মেলার স্টল উদ্বোধন করলেন রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ জিয়াউর রহমান ছিলেন সফল রাষ্ট্রনায়ক ও বিশ্বনেতা : বেলজিয়াম বিএনপি অবৈধ বাংলাদেশিদের ফেরত আনতে আর্থিক সহায়তা দেবে ইউরোপিয় ইউনিয়ন ইংলিশ চ্যানেলে ব্রিজ নির্মাণ করে ফ্রান্সকে যুক্ত করার প্রস্তাব: বিদ্রুপের শিকার ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিশ্বনাথে ১০ম টি-২০ ক্রিকেট লীগের উদ্বোধন নারায়ণগঞ্জের সেই অস্ত্রধারী নিয়াজুল লাপাত্তা:থানায় অভিযোগ! সৌদি আরব বিএনপির সভাপতি মুকিব সাংগঠনিক সফরে এখন জর্ডান বিদ্যালয়ে ভর্তি ফি ২০০০ টাকা! বাংলাদেশের ব্যাংক লুটপাটকারীদের তালিকা ওয়েবসাইটে প্রকাশের দাবি সাংসদের ল্যাব এইডের সিসিইউতে নারায়ণগঞ্জের মেয়র আইভী:বিশ্রামে থাকার পরামর্শ চিকিৎসকদের
ময়মনসিংহ

গ্রেফতার আতঙ্কে গোপনে চিকিৎসা নিচ্ছেন শিক্ষকরা

বাংলাপেইজ রিপোর্ট: প্রকাশিত হয়েছে: ২৯-১১-২০১৬ ইং । ২০:২৭:৪৯

কোনও কিছু বুঝে ওঠার আগেই হঠাৎ করে লাঠিসোটা নিয়া আইসা পুলিশ পেটানো শুরু করে। একজনের পর আরেকজন এভাবে পেটাতেই থাকে। আমি মনে করলাম, আর বাঁচবো না, শেষ হয়ে যাব। পরে কোনও মতে ভবনের ভেতরে চলে আসি। সহকর্মীরা মাথায় পানি দিয়ে সুস্থ করেন। গরু ছাগলের মতো করে আমাদের মারা হয়েছে।

ময়মনসিংহ শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে আত্মগোপনে থেকে, বিছানায় শুয়ে কাতরাতে কাতরাতে ফুলবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক হেলাল উদ্দিন এসব কথা বলেন। গত রবিবারের (২৭ নভেম্বর) পুলিশি হামলার ঘটনা এভাবেই বর্ণনা করেছেন তিনি।

পুলিশি হামলা থেকে বাদ যাননি নারী শিক্ষকরাও। সমাজকর্ম বিভাগের প্রভাষক মাসরুফা সুলতানা সেদিনের পুলিশি নির্যাতনের বর্ণনা দিতে গিয়ে কান্না ধরে রাখতে পারেননি। তিনি বলেন, ‘কলেজ ক্যাম্পাসের প্রশাসনিক ভবনের তালা ভেঙে পুলিশ ভেতরে ঢুকে একেকজনকে ধরে বেধড়ক পেটাতে থাকে। ভয়ে মহিলাসহ অনেকেই বাথরুমে আশ্রয় নিয়েছিল। তাদেরও ছাড়েনি পুলিশ। মনে হয়েছিল আর বাড়ি ফিরে যেতে পারব না।’ রবিবারের ঘটনায় প্রায় অর্ধশত শিক্ষক-কর্মচারী আহত হয়েছেন। আহতরা গ্রেফতার আতঙ্কে চিকিৎসাও নিতে পারছেন না বলে দাবি করেন মাসরুফা।এই ঘটনার বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি করেছেন তিনি।

এদিকে পুলিশি নির্যাতনে অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদের মৃত্যুর ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনও মামলা হয়নি। ফুলবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজ সরকারিকরণ দাবি আদায় কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক এসএম আবুল হাশেম জানান, আন্দোলনকারী শিক্ষক কর্মচারীরা গ্রেফতার আতঙ্কে বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে আছেন। পরিস্থিতি শান্ত হলে অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ হত্যার ঘটনায় শিক্ষকদের পক্ষ থেকে মামলা করা হবে।

স্থানীয় সূত্র ও আন্দোলনকারীরা জানান, কলেজ জাতীয়করণে উপজেলার সবচেয়ে প্রাচীন, উপজেলা সদরে অবস্থান, শিক্ষার্থী ও শিক্ষকের সংখ্যা বেশি থাকা, এমপিওভুক্তি ও অবকাঠামোগত সুবিধা থাকার মতো সব শর্ত পূরণের পরও বাদ বাদ পড়ে ফুলবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজ। অথচ উপজেলা সদর থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরের, ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত, নন-এমপিও ও মাত্র ২০০ ছাত্রী থাকা বেগম ফজিলাতুনন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজকে জাতীয়করণ করা হয়।

এর পর থেকে টানা দেড় মাস ধরে হরতাল, অবরোধ, বিক্ষোভ, মিছিল, সমাবেশ, অনশন, মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদানসহ নানা কর্মসূচি নিয়ে আন্দোলনে নামেন ফুলবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা। যৌক্তিক এই দাবির প্রতি সমর্থন দিয়ে আন্দোলনে শরিক হয় আওয়ামী লীগের একটি বড় অংশ, মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয় নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ। দাবি আদায়ের চলমান আন্দোলনে রবিবার ওই হামলা চালানো হয়।

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মোসলেম উদ্দিনের কারসাজিতেই জাতীয়করণের তালিকা থেকে বাদ পড়ে ফুলবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজ। এই কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি ছিলেন স্থানীয় এই সংসদ সদস্য। আর তার ছেলে অ্যাডভোকেট ইমদাদুল হক সেলিম হচ্ছেন একই কলেজের সদস্য এবং বেগম ফজিলাতুনন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজের সভাপতি।

আন্দোলনকারীরা আরও অভিযোগ করেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও তার ছেলের নির্দেশেই শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ওপর রবিবার এই বর্বরোচিত হামলা চালায় পুলিশ । হামলার ঘটনায় আন্দোলনকারীরা বিচার বিভাগীয় তদন্ত  ও দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন।

রবিবারের সংঘর্ষে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি এবং পথচারী সফর আলী মারা যাওয়ার ঘটনায় আরও একটিসহ দুটি আলাদা মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর মধ্যে পুলিশের ওপর হামলার মামলায় রবিবার আটক গোলাম ফারুক, জুয়েল মিয়া ও নাজমুল ইসলাম- এই তিন জনের রিমান্ড চেয়ে সোমবার বিকালে ময়মনসিংহ আদালতে তোলা হয়েছে। এই মামলায় অজ্ঞাতনামা ৪০০/৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। আর সফর আলী মারা যাওয়ার ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। এর আগে স্থানীয় সংসদ সদস্যের ছেলের মালিকানাধীন প্রাইভেট হাসপাতালে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় আরও একটি মামলা হয়েছে। এসব মামলার কারণে গ্রেফতার আতঙ্ক বিরাজ করছে ফুলবাড়িয়ায়। এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

এদিকে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, মাউশি গঠিত তদন্ত কমিটি মঙ্গলবার তদন্ত কাজ শুরু করেছে। শিক্ষক হত্যার বিচার দাবিতে মুখে কালো কাপড় বেঁধে ময়মনসিংহ শহরের শহীদ ফিরোজ জাহাঙ্গীর চত্বরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে পরিবারের সদস্যসহ বিভিন্ন সংগঠন। জেলা ছাত্র ইউনিয়ন আয়োজিত মানববন্ধন চলাকালে নিহত শিক্ষক আবুল কালাম আজাদের কন্যা সামিহা আজাদ তার বাবার হত্যাকাণ্ডের বিচার চেয়ে অবিলম্বে হত্যার সঙ্গে জড়িত পুলিশ কর্মকর্তাদের গ্রেফতার দাবি করেছেন।

#সা.হা/বাংলাপেইজ২৪.কম

শেয়ার করুন
সর্বশেষ খবর ময়মনসিংহ
  • ময়মনসিংহে কলেজ ছাত্রীকে পিটিয়ে জখম করায় দুইজন আটক
  • ‘রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে আগামী মাসে সংলাপের প্রস্তুতি’
  • ময়মনসিংহে একটি কলাগাছ দেখতে জনতার ঢল
  • এক নারী কনস্টেবল ডায়েরিতে লিখে গেলেন আত্মহত্যার কারণ
  • ময়মনসিংহে বিএনপিপন্থী উপজেলা চেয়ারম্যান গ্রেপ্তার
  • ভোটের ব্যবধান ১ লাখ ৯১ হাজার!
  • ময়মনসিংহে মহিলা কলেজে দুর্বৃত্তদের হামলা : ভাঙচুর
  • ময়মনসিংহে ট্রাকচাপায় ৪ অটোআরোহীর মৃত‌্যু
  • ময়মনসিংহে ট্রাক-টেম্পো সংঘর্ষে নিহত ৩
  • ময়মনসিংহে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন শাকিল
  • গ্রেফতার আতঙ্কে গোপনে চিকিৎসা নিচ্ছেন শিক্ষকরা
  • কলেজে শিক্ষকের লাশ নিতে বাধার অভিযোগ, ১৪৪ ধারা
  • আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, নিহত ১
  • ময়মনসিংহে আওয়ামী লীগ-যুবলীগ সংঘর্ষ, নিহত ১
  • ময়মনসিংহের গৌরীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫
  • এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।